অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়াতে চায় উন্নয়ন সংস্থা ” রউস “

0
60

মোঃ রুবেল হোসেন, নওগাঁ : রসুলপুর উন্নয়ন সংস্থা ” রউস ” কে মানবসেবায় উৎসর্গ করে দিতে চান অত্র প্রতিষ্ঠানের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান মো: আব্দুর রহমান (রানা)
সরেজমিনে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, নওগাঁর পত্নীতলা উপজেলার ৫নং মাটিন্দর ইউনিয়নের শশাইল বাজার এলাকার তরুণদের নিয়ে উন্নয়নের স্বার্থে অস্বচ্ছল,গরীব, অসহায়, নির্যাতিত ব্যক্তিদের পাশে বিনা স্বার্থে ২০১৭ সালে গঠন করা হয়েছিল রসুলপুর উন্নয়ন সংস্থা ” রউস ” গঠন করার পর থেকে অত্র এলাকার গরীব ও দুস্থ এবং শিক্ষিত ও অশিক্ষিত নারী- পুরুষদের কর্মসংস্থান তৈরী করে দিয়ে সমাজের বুকে প্রতিষ্ঠিত করা, সকল সম্ভাব্য সহযোগীতা ও কর্মকান্ডের মাধ্যমে ইউনিয়নের সকল বাসিন্দাদের আর্থ- সামাজিক উন্নয়নে সহায়তা প্রদান করা, এলাকার শিক্ষিত ও বেকার যুবকদের কর্মসংস্থানের লক্ষ্যে দিক নির্দেশনা মূলক পরামর্শের মাধ্যমে উপযুক্ত নিয়োগে কর্মক্ষেত্রে সহায়তা প্রদান করা।

মাদক,জঙ্গীবাদ, বাল্যবিবাহ, সন্ত্রাস মুক্ত এলাকা গঠন করার লক্ষ্যে জনসচেতনতা মূলক বিভিন্ন সভা,সমাবেশ ও লিফলেট বিতরণ , শিক্ষার মান উন্নয়ন করার লক্ষ্যে গরীব ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের শিক্ষাবৃত্তির ব্যবস্থা করা, স্বেচ্ছায় নিয়মিত রক্তদান কর্মসূচি গ্রহণ , অসহায় প্রবীণদের কল্যাণে সেবামূলক কার্যক্রম পরিচালনা করা। কণ্যাদায়গ্রস্থ পরিবারকে আর্থিক সহায়তা করা, অসহায় রোগীদের চিকিৎসার দায়িত্ব গ্রহণ করা, মহামারী করোনা ভাইরাসের সময় ২০০ পরিবারের মাঝে ত্রাণ ও ৮ হাজার মাস্ক বিতরণ সহ বিভিন্ন ধরণের সামাজিক উন্নয়ন মূলক কাজে সার্বিক সহযোগীতা করে আসছে আমাদের সংগঠন ” রউস ” এ বিষয়ে এলাকাবাসী ও সূধীসমাজ বলেন, আমরা হঠাৎ করে ২০১৭ সালে দেখি শশাইল গ্রামের মো: শরিফুল ইসলামের ছেলে মো: আব্দুর রহমান রানা এলাকার তরুণ ও যুবকদের নিয়ে রউস নামে একটি সামাজিক সংগঠন তৈরী করেছে। শুরু থেকেই দেখি বিভিন্ন ধরণের সামাজিক উন্নয়ন মূলক কর্মকান্ড পরিচালনা করে আসছে। আমরা কোনদিন ভাবা তো দূরের কথা স্বপ্নেও কল্পনা করতে পারিনি আমাদের মফস্বল এলাকায় এমন একটি অ-রাজনৈতিক সামাজিক উন্নয়ন মূলক সংগঠন তৈরী হবে আর তাই এখন মনে করছি এই ” রউস ” সংগঠনটি আজ আমাদের অহংকার ও গর্ব।

রসুলপুরে এই উন্নয়ন সংস্থা ” রউস ” এর প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান মো. আব্দুর রহমান (রানা) গণমাধ্যমকে বলেন, আমার অনেক আগে থেকেই স্বপ্ন ছিল আমি আমার এলাকার উন্নয়নের জন্য কিছু করবো। আমরা চাই আমাদের এলাকার বেকার যুবকদের কিছু কর্মসংস্থান সৃষ্টি হোক, এবং আমাদের এলাকা কে বাংলাদেশের মানুষ যেন এক নামে জানে এবং চেনে। এরই ধারাবাহিকতায় আমি আমার এলাকার মাটিন্দর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সফল সাবেক সভাপতি মো.আলমগীর হোসেন (স্বপন), মেরুইল গ্রামের মৃত- আলিমদ্দীনের ছেলে মো. সাইদুর রহমান, শশাইল গ্রামের মৃত কাফিজ উদ্দীনের ছেলে মো: ছয়েফ উদ্দীন (কল্লোল), আবুল কাশেম এর ছেলে মো. মোয়াজ্জেম হোসেন (জুয়েল), জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সফল সহ-সভাপতি মো: সোলাইমান আলীর, গিদিশা গ্রামের মো.এনামুল হক সহ সকলের সহিত আলাপ আলোচনা করে এবং সার্বিক সহযোগীতা নিয়ে ২০১৭ সালে রসুলপুর উন্নয়ন সংস্থা ” রউস ” নামের একটি সামাজিক ও অ-রাজনৈতিক সংগঠন তৈরী করি। সংগঠনটি তৈরী করার পর থেকে এলাকার বিভিন্ন উন্নয়ন মূলক কাজে আমাদের সাধ্যমত সহযোগীতা করে আসছি।
আমরা আমাদের সংগঠনের আয়োজনে মাদক, সন্ত্রাস, জঙ্গীবাদ, বাল্যবিবাহ, যেীতুক বিরোধী জনসচেতনা মূলক সভা, সমাবেশ ও লিফলেট বিতরণ করছি। করোনা ভাইরাসের সময় দুই শতাধিক পরিবারের মাঝে খাদ্য সহায়তা ও আট হাজার মাস্ক বিতরণ, অটো ইজিবাইক শ্রমিকদের আর্থিক সহায়তা প্রদান, গরীব দুঃখী মানুষের জন্য প্রায় পাঁচ শতাধিক শাড়ী লুঙ্গি ঈদ উপহার, সংগঠনের সকল সদস্যদের নিয়মিত স্বেচ্ছায় রক্তদান, শীতার্তদের মাঝে প্রায় সাত শতাধিক কম্বল বিতরণ, অসহায়দের চিকিৎসা ক্ষেত্রে সার্বিক সহযোগীতা, কণ্যাদায়গ্রস্থ পরিবারকে আর্থিক সহায়তা প্রদান,প্রতিবন্ধীদের শিক্ষার ব্যবস্থা করা, বার্ষিক ক্রিয়া প্রতিযোগীতা ও সাংস্কৃতিক , অস্বচ্ছল পরিবারের মাঝে গৃহপালিত পশু ও কৃষি কাজে আর্থিক সহায়তা, প্রায় শতাধিক এতিম ছেলে মেয়েদের লেখাপড়ার দায়িত্ব গ্রহণসহ বিভিন্ন ধরণের সামাজিক উন্নয়ন মূলক কাজ করছি। আমরা সকলের নিকট দোয়া চাই- আমাদের রসুলপুর উন্নয়ন সংস্থা ” রউস ” যেন এভাবেই আজীবন সকলের বিপদে- আপদে, সুূখে-দু:খে থাকতে পারে।

আপনার মন্তব্য