সর্বশেষ

20.6 C
Rajshahi
Saturday, December 4, 2021

Saturday, December 4, 2021
🥽VR Game🎮🎯 নতুন বছরে থিম ওমর প্লাজায় যুক্ত হলো ভার্চুয়াল রিয়েলিটি (VR) গেম .ভিডিও দেখুন.। এ বছরই আমরা শুরু করেছি আমরা শুরু করেছি টপ লাইফ স্টাইল (www.toplifestylebd.com) এর নতুন একটি ই-কর্মাস সাইট যা আপনার কেনাকাটা কে হাতের মুঠোয় এনে দিবে।

ঈদের ৭ দিন আগেই খামারের গরু শেষ!

রাজশাহীর থিম ওমর প্লাজায় বিনিয়োগের সুবর্ণ সুযোগ ঈদুল ফিতর উপলক্ষে অল্প কিছু সংখ্যক ফ্ল্যাট ও দোকান বিক্রয় চলছে। এককালীন মূল্য পরিশোধে বিশেষ মূল্য ছাড় !! যোগাগোঃ 01615-33 22 29,01615-33 22 51. Theme Omor Plazaকম্পিউটার,কম্পিউটার এক্সেসরিজ ও মোবাইল মোবাইল এক্সেসরিজ. এবং ইলেকট্রনিক্স পন্য মেলা দোকান স্টল বুকিং ও রেজিস্ট্রেশন চলছে। যোগাযোগ-০১৬১৫-৩৩২২২৯,০১৬১৫-৩৩২২৫১,০১৬১৫-৩৩২২২৬ , ০১৭১৯-২৫০২৪২,০১৭২১-১৮৪৮৩১

                   

টপ নিউজ ডেস্ক : খামার ভরা গরু, কিন্তু বিক্রি করার মতো নেই। রাজধানীর উত্তরার ১১ নং সেক্টরের সাজ্জাদ হোসেন গিয়েছিলেন গাজীপুরের কোনাবাড়ীর আমবাগে অবস্থিত সুবেদ আলী এগ্রো ফার্মে গরু কিনতে। কিন্তু কোনো লাভ হয়নি। বিক্রির মতো সব গরু শেষ হয়ে গেছে। গত বছর এই খামার থেকেই কোরবানির জন্য গরু কিনেছিলেন সাজ্জাদ হোসেন।

dd4fed1e 98e0 41d7 93b8 37c39c527eab

ধানমন্ডির শামসুল ইসলাম বলেন, ৭ দিন আগে (২৫ জুলাই) ফোনে যোগাযোগ করা হলে বলা হয় গরু বিক্রি শেষ। এবার সুবেদ আলী এগ্রো ফার্মে ২২০টি গরু ঈদুল আজহায় বিক্রির জন্য প্রস্তুত করেছিল। গত বছর সাড়ে ৩শ গরু লালন-পালন করলেও এবার করোনার কারণে গরু সংগ্রহ করতে পারেননি। যে কারণে গত বছরেরই অনেক গ্রাহককে তিনি ফেরত দিয়েছেন।

-Theme Omor Plaza-

দেশের বিভিন্ন হাট-বাজারে গরুর ক্রেতা নেই। ছোট খামারি, গৃহস্থ এবং ব্যাপারীরা গরু বিক্রি করতে হিমশিম খাচ্ছেন। ব্যাপারীরা বলছেন ক্রেতা নেই, আবার ক্রেতা বলছেন দাম বেশি। এমন দর-কষাকষির মধ্যে দিয়ে হাট-বাজারে পশু কেনাবেচা হচ্ছে। গতকাল সোমবারও গাবতলী হাটে ক্রেতা ছিল না। হাটে প্রচুর পশু আমদানি হয়েছে। বেশ কয়েকজন ব্যাপারী বলেন, ‘লস দিয়ে গরু বিক্রি করছি। সারাদেশেই বড় বড় হাটগুলোতে খোঁজ-খবর নিয়ে জানা গেছে, ক্রেতা কম বিক্রিও কম, সে কারণে এবার গরুর দাম তুলনামূলক সস্তা।

ঈদের ৭ দিন আগেই খামারের সব গরু বিক্রির প্রসঙ্গে সুবেদ আলী এগ্রোর মালিক হাজি মনসুর আলী জাগো নিউজকে বলেন, এবার করোনার কারণে কম গরু লালন-পালন করেছি। কারণ ওই সময় গরু সংগ্রহ করা সম্ভব হয়নি। আমার অনেক পুরাতন গ্রাহককে এবার ফেরৎ দিতে হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, গত বছর গরুর ব্যবসা খারাপ ছিল, তারপরও আমরা লাভ করেছিলাম। আমাদের খামার থেকে একবার যে গরু কিনবে সে বারবার আসবে। কারণ আমরা একেবারে ন্যাচারাল (প্রাকৃতিক) খাবার খাওয়াই। বাজারের কোনো খাদ্য আমাদের পশুকে খাওয়াই না। গম, ভুট্টা, ধান, কয়েক প্রকার ডাল কিনে একসঙ্গে ভাঙিয়ে খাবার তৈরি করি। এছাড়া পশুদের খাওয়ার জন্য নিজেদের জমিতে উন্নত ধরনের ঘাস তৈরি করেছি।

বাজারের গরুর ওপর অনেকের বিশ্বাস নেই। কারণ অনেক অসাধু ব্যবসায়ী এখনো ইনজেকশন, ট্যাবলেটসহ নানা ধরনের খাবার খাইয়ে মোটাতাজাকরণ করে। যে কারণে মাংস তিতা লাগে। আজ থেকে ৬ বছর আগে একবার কোরবানির সকল মাংস ফেলে দিতে হয়েছিল। তারপর থেকেই আমার খামার শুরু। বিশ্বাসের কারণে অনেক প্রতিষ্ঠিত খামারের গরু বিক্রি শেষ হয়ে গেছে, অথচ বাজারে গরু বিক্রি হচ্ছে না।

সূত্র : জাগো নিউজ

 

Theme Omor Plaza (Ad-4)
Theme Omor plaza