সর্বশেষ

15.4 C
Rajshahi
Sunday, January 23, 2022

Sunday, January 23, 2022

নারীর নগ্ন ভিডিও ধারণ,পর্নোগ্রাফি নিয়ন্ত্রণ আইনে এ মামলা

রাজশাহীর থিম ওমর প্লাজায় বিনিয়োগের সুবর্ণ সুযোগ ঈদুল ফিতর উপলক্ষে অল্প কিছু সংখ্যক ফ্ল্যাট ও দোকান বিক্রয় চলছে। এককালীন মূল্য পরিশোধে বিশেষ মূল্য ছাড় !! যোগাগোঃ 01615-33 22 29,01615-33 22 51. Theme Omor Plazaকম্পিউটার,কম্পিউটার এক্সেসরিজ ও মোবাইল মোবাইল এক্সেসরিজ. এবং ইলেকট্রনিক্স পন্য মেলা দোকান স্টল বুকিং ও রেজিস্ট্রেশন চলছে। যোগাযোগ-০১৬১৫-৩৩২২২৯,০১৬১৫-৩৩২২৫১,০১৬১৫-৩৩২২২৬ , ০১৭১৯-২৫০২৪২,০১৭২১-১৮৪৮৩১
- Advertisement -

টপ নিউজ ডেস্ক : ময়মনসিংহের তারাকান্দায় ফরিদ আহম্মেদ নামে এক যুবকের বিরুদ্ধে এক নারীর অশ্লীল ভিডিও মোবাইলে ধারণ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়ার হুমকি দিয়ে চাঁদাবাজির অভিযোগ উঠেছে।


মঙ্গলবার এ ঘটনায় ময়মনসিংহের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট ৬ নম্বর আমলী আদালতে মামলা দায়ের হয়েছে।খবরের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন মামলার আইনজীবী শাজাহান কবীর সাজু।
তিনি জানান, ভিকটিম বাদী হয়ে পর্নোগ্রাফি নিয়ন্ত্রণ আইনে এ মামলাটি দায়ের করেন। বিজ্ঞ বিচারক মামলঅটি আমলে নিয়ে ওসি তারাকান্দাকে ৭ কার্যদিবসের মধ্যে এফআরআই করার নির্দেশ দিয়েছেন বলে জানান আইনজীবী।

- - Advertisement - -


মামলার অভিযোগে জানা যায়, ত্রিশাল উপজেলার বিয়ারা আওলীয়ানগর এলাকার এক নারীর সঙ্গে মোবাইল ফোনে পরিচয় হয় ফরিদের। পরিচয়ের সূত্রে গত ৭ ফেব্রুয়ারি এক মুন্সির মাধ্যমে বিয়ে পড়িয়ে রেজিস্ট্রি না করেই ৮ ফেব্রুয়ারি কক্সবাজার নিয়ে গিয়ে তিন দিন হোটেলে রাত্রী যাপন করে গোপনে মোবাইল ফোনে অশ্লীল ভিডিও ধারণ করে।


ওই নারী বলেন, ওই অশ্লীল ভিডিও মোবাইলে পাঠিয়ে টাকা দাবি করে ইন্টানেটে ছড়িয়ে দেয়ার হুমকি দেয় ফরিদ। পরে ভিডিও ডিলিট করে দেয়ার শর্তে তাকে ৫০ হাজার টাকা দেই। কিন্তু তিনি ভিডিও ডিলিট না করে হুমকি দিতে থাকলে র্যাব অফিসে অভিযোগ করি। বিষয়টি জানতে পেরে তিনি ভুল স্বীকার করে গত ৪ মার্চ ময়মনসিংহ শহরে আসলে বিয়ে করার আশ্বাসে নন-জুডিশিয়াল স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর নিয়ে আমাকে তারাকান্দা উপজেলার কাশিগঞ্জ বাজারে এক বাসায় নিয়ে যায়। তিনি আমাকে দুই দিন আটকে রেখে ৩ বন্ধু মিলে গণধর্ষণ করে মোবাইলে ভিডিও ধারণ করে। এ ঘটনায় গত ১৫ মার্চ তারাকান্দা থানায় অভিযোগ করতে গেলে ওসি আমাকে আটকে রেখে সাদা কাগজে আমার মা’র স্বাক্ষর নিয়ে ছেড়ে দেয়।


তবে এসব বিষয়ে জানতে ফরিদের মুঠোফোনে যোগাযোগ করেও তার বক্তব্য জানা যায়নি।
এ বিষয়ে তারাকান্দা থানার ওসি আবুল খায়ের বলেন, আমার বিরুদ্ধে অভিযোগ সঠিক নয়। তবে ফরিদের বিরুদ্ধে আটকে রেখে ধর্ষণের অভিযোগ নিয়ে ওই নারী থানায় এসেছিল। পরে জানতে পারি ফরিদ তাকে বিয়ে করেছে। এখন আদালতের কাগজ হাতে পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।


সূত্র: ডেইলি-বাংলাদেশ

- Advertisement -