সর্বশেষ

17 C
Rajshahi
Sunday, January 23, 2022

Sunday, January 23, 2022

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সুন্দরী মেয়েদের সঙ্গে আপত্তিকর ছবি তুলে মুক্তিপণ দাবি, গ্রেপ্তার ২

রাজশাহীর থিম ওমর প্লাজায় বিনিয়োগের সুবর্ণ সুযোগ ঈদুল ফিতর উপলক্ষে অল্প কিছু সংখ্যক ফ্ল্যাট ও দোকান বিক্রয় চলছে। এককালীন মূল্য পরিশোধে বিশেষ মূল্য ছাড় !! যোগাগোঃ 01615-33 22 29,01615-33 22 51. Theme Omor Plazaকম্পিউটার,কম্পিউটার এক্সেসরিজ ও মোবাইল মোবাইল এক্সেসরিজ. এবং ইলেকট্রনিক্স পন্য মেলা দোকান স্টল বুকিং ও রেজিস্ট্রেশন চলছে। যোগাযোগ-০১৬১৫-৩৩২২২৯,০১৬১৫-৩৩২২৫১,০১৬১৫-৩৩২২২৬ , ০১৭১৯-২৫০২৪২,০১৭২১-১৮৪৮৩১
- Advertisement -

টপ নিউজ ডেস্ক : ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় দুই ব্যবসায়ীকে ব্ল্যাকমেইল করে সুন্দরী মেয়েদের সঙ্গে আপত্তিকর ছবি তোলে ১০ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করায় দুই যুবককে গ্রেপ্তার করেছে জেলা ডিবি পুলিশ।
শনিবার রাতে জেলার কসবা উপজেলার গোপীনাথপুর থেকে ব্যবসায়ী মোবারক হোসেনকে উদ্ধার করা হয়।
গ্রেপ্তার ইফতেখার ভূইয়া রবিন সদর উপজেলার রামরাইল ইউপির বিজেশ্বর গ্রামের স্বপন ভূইয়ার ছেলে এবং ইয়াম হোসেন একই এলাকার কবির হোসেনের ছেলে।
ডিবির ওসি লোকমান হোসেন জানান, গত শুক্রবার রাতে আশুগঞ্জ উপজেলার চর-চারতলা গ্রামের মতিউর রহমানের ছেলে ব্যবসায়ী মোবারক হোসেন তার বন্ধু মিন্টু দাসকে নিয়ে ব্যবসায়িক প্রয়োজনে ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরে আসেন। পরে তাদেরকে গ্রেপ্তারকৃত যুবকরা শহরের কলেজপাড়ার একটি বাসায় নিয়ে যান। ওই বাসায় যাওয়ার পর তাদেরকে ব্ল্যাকমেইল করে বাসায় থাকা সুন্দরী মেয়েদের সঙ্গে আপত্তিকর ছবি উঠিয়ে তাদের কাছে ১০ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করেন। পরে অপহরণকারীদের সঙ্গে ব্যবসায়ীদের চার লাখ টাকা রফাদফা হয়।
এক পর্যায়ে প্রতারক চক্রটি মোবারক হোসেনকে আটকে রেখে মিন্টু দাসকে টাকা নিয়ে যাওয়ার জন্য ছেড়ে দেন। মিন্টু দাস ছাড়া পেয়ে বিষয়টি পুলিশকে অবহিত করেন। পরে পুলিশের কথামতো মিন্টু দাস শনিবার রাতে শহরের মেড্ডা এলাকা থেকে টাকা নেয়ার জন্য রবিন ও ইয়াম হোসেনকে ফোন দেন। রবিন ও ইয়াম হোসেন টাকা নেয়ার জন্য মেড্ডা এলাকায় গেলে তাদেরকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। শনিবার রাতে অ্যাডিশনাল এসপি (প্রশাসন ও অপরাধ) মো. রইছ উদ্দিনের নেতৃত্বে পুলিশ কসবা উপজেলার গোপীনাথপুর এলাকা থেকে মোবারক হোসেনকে উদ্ধার করে।
ওসি লোকমান হোসেন আরো জানান, উদ্ধারকৃত মোবারক হোসেন এ ঘটনায় রোববার থানায় মামলা দায়ের করেছেন। পরে তিনি আদালতে জবানবন্দীও প্রদান করেন। এ ঘটনায় জড়িত অন্যদেরকেও গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। ভারতীয় নাগরিকের বিস্তারিত তথ্য কৌশলগত কারণে তিনি দিতে অপারগতা প্রকাশ করেন।
এ ব্যাপারে অ্যাডিশনাল এসপি (প্রশাসন ও অপরাধ) মো. রইছ উদ্দিনের সঙ্গে যোগাযোগ করলে তিনি ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, এই ঘটনার সঙ্গে জড়িত দুই যুবককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বাকীদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

সূত্র:ডেইলি-বাংলাদেশ

- Advertisement -