সর্বশেষ

27.5 C
Rajshahi
বুধবার, জুলাই ১৭, ২০২৪

’ভিনেগার’ গুণের শেষ নেই যার

শুধুই রান্না বা আচারের উপকরণ নয়; বরং দৈনন্দিন জীবনে আমাদের  নানা কাজে লাগে ভিনেগার। নানান পদের ভিনেগারের ভেতর সাদা ও অ্যাপল সিডার—এই দুই ভিনেগারই সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয়। তাহলে চলুন চট করে দেখে নেই ভিনেগারের কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ ব্যবহার।

রান্নায় আর রান্নাঘর পরিষ্কারে

রান্নার স্বাদ বাড়াতে, মাছ–ও মাংসের গন্ধ দূর করতে, খাবার সংরক্ষণ করতে, চর্বিযুক্ত খাবার ও আচারে ভিনেগারের ব্যবহার বেশ পুরোনো। খাবারের স্বাদ ও পুষ্টিগুণ বাড়াতে এবং খাবার দ্রুত সেদ্ধ হতে ব্যবহার করা হয় ভিনেগার।

ভিনেগার রান্নাঘর পরিষ্কারেও কাজে দেবে।এক লিটার পানিতে আধা কাপ ভিনেগার মিশিয়ে রান্নাঘরটি পরিষ্কার করুন।ভিনেগার ব্যবহার করে ওভেনের দুর্গন্ধও দূর করতে পারেন এক নিমিষেই। একটি কাপে তিন ভাগ পানি ও এক ভাগ ভিনেগার নিন। সেটি মাইক্রোওয়েভ রেখে ওভেনে গরম করুন খানিকক্ষণ। ব্যস, হয়ে গেল! লাঞ্চ বা টিফিন বক্সের ক্ষেত্রেও বিষয়টি প্রযোজ্য। অনেক সময় প্রতিদিন ব্যবহারের ফলে এর ভেতরে ভ্যাপসা গন্ধ হয়ে যায়। এক টুকরো পাউরুটি নিয়ে ভিনেগারে ভিজিয়ে সেটি রাতভর রেখে দিন বক্সে। সকালে উঠে দেখবেন সব গন্ধ গায়েব! একই ভাবে আপনার ফ্রিজটি পরিষ্কার করতেও সমপরিমাণ পানি আর ভিনেগার ব্যবহার করতে পারেন।

চুলের প্রাকৃতিক কন্ডিশনার হতে পারে ভিনেগার

বাথরুমের এক কর্নারে শ্যাম্পুর সঙ্গে একটি অ্যাপল সিডার ভিনেগারের (এসিভি) বোতল আপনি রাখতেই পারেন। কেননা অনেক সময় দেখা যায়, কেনা কন্ডিশনারে যেসব কেমিক্যাল ব্যবহার করা হয়, তাতে উল্টো আপনার চুলের ক্ষতি হচ্ছে। সেক্ষেত্রে কন্ডিশনারের জায়গাটি দখল করতে পারে ভিনেগার। শ্যাম্পু করার পর এক মগ পানিতে এক চা চামচ ভিনেগার মিশিয়ে নিন।তারপর  চুল ধুয়ে নিন। ঝলমলে হবে চুল।

কলমের দাগ মরিচা তুলতে

বাসায় কোন শিশু থাকলে এমন দৃশ্য খুবই ‘কমন’। দেয়ালে হাতি, ঘোড়া, মাছ, বাবা মা, বন্ধু! অবস্থাটাই  এমন যে নতুন করে আর ছবি আঁকার জায়গা নেই। তাই দেয়াল থেকে এ কলমের দাগ তুলতে তার ওপর ভিনেগার লাগান। তারপর একটা কাপড় বা স্পঞ্জ দিয়ে ঘষুন। দাগ চলে যাবে। ধরুন, দীর্ঘদিন ব্যবহার না করায় কোন কাঁচিতে মরিচা পড়ে গেল। এবার সাদা ভিনেগারে নরম কাপড় চুবিয়ে কয়েকবার কাঁচিটি মুছুন, মরিচা চলে যাবে। এরপর শুকনা নরম কাপড় দিয়ে মুছে ফেলুন।

সুস্থ্য শরীরের জন্য

ওজন কমাতে অ্যাপল সিডার ভিনেগারের (এসিভি) ব্যবহার বেশ পুরোনো। শরীরের কোলেস্টরল কমাতে ও  বারবার খিদে লাগার প্রবণতা কমাতে কাজে আসে এসিভি। গাঢ় মধুর মতো রং আর হালকা টক গন্ধের এসিভিতে আছে সেলুলোজ এবং অ্যাসিটিক অ্যাসিডের এমন একটি দারুন সমন্বয়, যা শরীরের কোলেস্টেরলের মাত্রা কমাতে সাহায্য করে। পুষ্টিবিদ সালমা পারভিন বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেছেন  প্রতিদিন এক থেকে দুই চামচ এসিভি শুধু ওজনই কমায় না,তার সাথে মেটাবলিজম বাড়ায়, অ্যান্টিঅক্সিডেন্টের জোগান দেয়। এতে প্রচুর পরিমাণে আঁশ (ফাইবার) আছে, যা কোষ্ঠকাঠিন্য কমাতে সহায়তা করে। টাইপ–টু ভিনেগার ডায়াবেটিস ও উচ্চ রক্তচাপের ঝুঁকি কমিয়ে হৃদ্‌রোগের আশঙ্কাও কমায় দেয়।

ত্বকে রোদের আঁচ ঠেকাতে

এবারের বসন্ত গরমকে সঙ্গে নিয়ে এসেছে। গরমের দিনে চেহারায় রোদে পোড়া কালচে ছোপ বা সানবার্ন সাধারণ নিত্য দিনের একটি সমস্যা। এ সমস্যার সমাধানেও জুড়ি নেই এসিভির । এক কাপ এসিভি, এক কাপ গোলাপজল, এক কাপ পানির মিশ্রণ তৈরি করে ফ্রিজে রেখে দিতে পারেন। প্রতিদিন ঘরে ফিরে মুখ, গলা, হাত এবং পায়ে মেখে বাতাসে শুকিয়ে নিন এক মিনিট। এরপর নরম কাপড়ের সাহায্যে আলতো করে ঘষে পরিষ্কার করে নিন।

লাইফ স্টাইল

সম্পাদনায়ঃ নাসরিন ইসলাম

Related Articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Latest Articles