সর্বশেষ

🎎✨🥼🥽🕶️🧦👗👘🥻👖🧣🩲🩱🩰👑👒👡👠🥾🥾👚👙🧥🕶️🎉📢📯📯দামে কম, মানে সেরা আমাদের পণ্য; কিনে হন ধন্য ।🎊 হ্যাঁ এবার 🎆ঈদে থিম ওমর প্লাজার Top Life style এ শপিং করে জিতে নিন আকর্ষণীয় সব পুরষ্কার। 🥇১ম পুরষ্কার ওয়ালটন ডাবল ডোর রেফ্রিজারেটর, 🥈২য় পুরষ্কার চার্জিং স্কুটি, 🥉৩য় পুরষ্কার পাঁচটি আকর্ষণীয় বাইসাইকেল। তাই আর দেরি কেনো? আজি চলে আসুন আমাদের আউটলেটে।যোগাযোগ: থিম ওমর প্লাজা, রাজশাহী। 🥻🩱🩲🩳🧣👖👕👔🦺🥼🥽🕶️👓🧥🧦👗👘👝👜👛👠🥿🥾👡🩰👢👒🎩💄💎Call us on our Hotline : 01324-442174 ; 01324-442175; 01324-442146;01324-442147;01324-442148;01324-442149;01324-442154;01324-442155
25.5 C
Rajshahi
বৃহস্পতিবার, অক্টোবর ৬, ২০২২

রাবির মতিহার হল ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকের বিরুদ্ধে ছাত্র নির্যাতনের অভিযোগ!

- Advertisement -

রাবি প্রতিনিধিঃ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের মতিহার হল ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ভাস্কর সাহার বিরুদ্ধে এক শিক্ষার্থীকে রুমে ডেকে নিয়ে পেটানো ও ২০ হাজার টাকা কেড়ে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। নির্যাতনের ঘটনা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ও সাংবাদিকদের জানালে বুয়েট শিক্ষার্থী আবরারের মতো পরিণতি হবে বলে হুমকি দেওয়া হয়েছে এই শিক্ষার্থীকে।

শুক্রবার (১৯ আগস্ট ) বিকালে অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেতার রুমে এ ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছেন ভুক্তোভোগী শিক্ষার্থী। তিনি রাত ৮টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র উপদেষ্টা এম তারেক নূরের কাছে এ বিষয়ে লিখিত অভিযোগ করেন।

- - Advertisement - -

অভিযুক্ত ওই নেতা শাখা ছাত্রলীগ নেতা ভাস্কর রাবি শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ফয়সাল আহমেদ রুনুর অনুসারী। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী এবং মতিহার হলের ১৩২ নম্বর রুমের আবাসিক শিক্ষার্থী।

-Theme Omor Plaza-

নির্যাতনের শিকার শিক্ষার্থীর নাম সামছুল ইসলাম। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী এবং মতিহার হলের ১৫৯ নম্বর কক্ষের আবাসিক শিক্ষার্থী।

- Advertisement -

লিখিত অভিযোগে সামছুল ইসলাম জানান, তিনি মতিহার হলের ১৫৯ নম্বর রুমের একজন আবাসিক শিক্ষার্থী। পড়াশোনার পাশাপাশি মোবাইল সার্ভিসিং করে জীবিকা নির্বাহ করেন এবং পরিবার চালান। গত ১৫ আগস্ট মতিহার হল শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ভাস্কর সাহা তাকে ফোন দিয়ে দেখা করার কথা বলেন। পরে দেখা করলে ভাস্কর চাঁদা দাবি করেন। এরপর টাকার জন্য প্রতিনিয়ত ফোন দেন এবং মানসিকভাবে টর্চার করতে থাকেন। টাকা দিতে না পারায় বিকাল ৩টায় ভাস্কর সাহা সামছুলকে রুমে ডেকে নেন। সেখানে সন্ধ্যা ছয়টা পর্যন্ত আটকে রেখে রড ও স্ট্যাম্প দিয়ে মারধর করেন।

নির্যাতনের বিষয়ে সামছুল সাংবাদিককদের বলেন, ‌’ভাস্কর আমাকে চাকু ঠেকিয়ে সঙ্গে থাকা ২০ হাজার টাকা কেড়ে নেয়। বিষয়টি কাউকে জানালে আবরারের মতো আমার অবস্থা করার হুমকি দেয় সে। এ অবস্থায় আমি নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি।’

মারধর ও টাকা ছিনিয়ে নেওয়ার বিষয়টি অস্বীকার করে মতিহার হল ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ভাস্কর সাহা বলেন, ‘সামছুলের সঙ্গে আমার এ ধরনের কোনও ঘটনা ঘটেনি। আমি জানি সে আমার হলে মোবাইল সার্ভিসিং করে। মোবাইল ঠিক করার জন্য আমার দুই ছোট ভাই তাকে ফোন দেওয়ার কথা বলে। সে বিষয়ে তার সঙ্গে কথা হয়।’

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ফয়সাল আহমেদ রুনু বলেন, ‘অভিযোগের বিষয়টি আমরা জেনেছি। এরকম কিছু হয়ে থাকলে অবশ্যই সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র উপদেষ্টা এম তারেক নূর বলেন, ‘একজন ছাত্র লিখিত অভিযোগ দিয়েছে। তাকে শারিরীকভাবে নির্যাতন করা হয়েছে। আমি তার শরীরের আঘাতের চিহ্নও দেখেছি। অভিযুক্ত শিক্ষার্থী একটি ছাত্র সংগঠনের সঙ্গে সম্পৃক্ত বলে জানতে পেরেছি।’ বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন অনুসারে এ ঘটনার ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান তিনি।’

- Advertisement -

Related Articles

আপনার মন্তব্য

Latest Articles