আগামী শিক্ষাবর্ষ থেকে রাবিতে আরও কিছু আসন কমছে

0
704

রাবি প্রতিনিধি: রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মানসম্পন্ন উচ্চশিক্ষা প্রদানের লক্ষ্যে আগামী বছরগুলোতে আরও কিছু আসন কমানোর চিন্তাভাবনা চলছে বলে জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য এবং ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষের কেন্দ্রীয় ভর্তি কমিটির সভাপতি অধ্যাপক ড. সুলতান-উল-ইসলাম। মঙ্গলবার (২৬ জুলাই) নিজ অফিসকক্ষে টপ নিউজ ২৪ অনলাইন ডটকমকে এই কথা জানান তিনি। আগামী শিক্ষাবর্ষে রাবিতে আসন সংখ্যা আরও কমানোর চিন্তা আছে কিনা, এমন প্রশ্নের উত্তরে উপ-উপাচার্য বলেন, “সার্বিক দিক বিবেচনা করে আমরা চিন্তা করছি।

তবে সরকারের পক্ষ থেকেও সারা দেশব্যাপী একটি পরিকল্পনা থাকা দরকার। দেশের বিভিন্ন জায়গায় নতুন বিশ্ববিদ্যালয় হয়েছে… শিক্ষার্থীদের সেখানেও ভর্তি হওয়ার সুযোগ থাকছে। এবারের ভর্তির ডিসিশনের সময়ই বিভাগগুলোর কাছে আমরা তথ্য চেয়েছি; বলেছি আপনারা যতটুকু যৌক্তিক মনে করেন ততটকু কমান এবং আপনারা দেখেছেন আমরা ১৬৮ টি আসন কমিয়ে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছি। আগামীতেও আমাদের পরিকল্পনা আছে শিক্ষার্থীদের সার্বিক উন্নতির স্বার্থে আরও কিছু আসন কমিয়ে আনার।”

বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের শ্রেণিকক্ষ ও আবাসন সংকটের দিকটি উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, “শিক্ষার সরঞ্জামাদি আমরা শিক্ষার্থীদেরকে প্রয়োজনমাফিক দিতে পারছি না … তারপরে হলো স্পেস এনাফ না, এছাড়া আবাসন সংকট তো রয়েছেই যার ফলে শিক্ষার্থীরা মেস মালিকদের উপর অনেকখানি নির্ভরশীল হয়ে যাচ্ছে। বিভাগ এবং ইন্সটিটিউটগুলোর সাথে আলোচনা করে আগামী বছরগুলোতে আমরা আরও কিছু আসন কমিয়ে আনতে চাই।” আসন সংখ্যা কমানোর বিষয়টিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের অনেক শিক্ষার্থী ইতিবাচকভাবে দেখছেন। ইংরেজি বিভাগের শিক্ষার্থী সাদমান সাকিব মনে করেন, “রাবিতে শিক্ষার্থীদের আবাসন সংকট এখন তীব্র আকার ধারণ করেছে। তাছাড়া কোভিডের কারণে অনেক বিভাগে পরীক্ষা সময়মতো নেওয়া সম্ভব হয় নি, কিন্তু ইতোমধ্যেই দুটো ব্যাচ বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রবেশ করছে। তাই আগামী বছরগুলোতে অবশ্যই আসন সংখ্যা কমিয়ে আনা উচিৎ।”

প্রসঙ্গত, পরিচালন সক্ষমতা ও চাহিদা বিবেচনায় নিয়ে ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষে বিভিন্ন বিভাগ ও ইন্সটিটিউটের ১ হাজার ১৫ টি আসন কমিয়ে আনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। শিক্ষা ও গবেষণার মান বজায় রাখতে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় একই শিক্ষাবর্ষে ১৬৮ টি আসন কমিয়ে ভর্তি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে। রাবি জনসংযোগ দপ্তর থেকে প্রাপ্ত তথ্যানুযায়ী, এই বছর বাংলা বিভাগে ২০টি, ইতিহাস বিভাগে ১০টি, নাট্যকলা বিভাগে ৫টি, অর্থনীতি বিভাগে ১০টি, রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগে ১০টি, সমাজকর্ম বিভাগে ২০টি, সমাজবিজ্ঞান বিভাগে ২০টি, মনোবিজ্ঞান বিভাগে ৫টি,লোকপ্রশাসন বিভাগে ১০টি,ফোকলোর বিভাগে ৬টি, নৃবিজ্ঞান বিভাগে ৬টি, জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগে ১৫টি, কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগে ১০টি, প্রাচ্যকলা, চিত্রকলা ও ছাপচিত্র বিভাগে ১৫টি এবং ভূগোল ও পরিবেশবিদ্যা বিভাগে ৬টি আসন কমানো হয়েছে ।

আপনার মন্তব্য