সর্বশেষ

39.4 C
Rajshahi
সোমবার, এপ্রিল ১৫, ২০২৪

বাজার চওড়া শাকসবজির , স্বস্তি মিলছে মাছ-মাংসে

শাহাদাত হোসাইন: গত সপ্তাহের ব্যবধানে রাজশাহীর বাজারগুলোতে কমেছে পাকিস্তানি কক বা সোনালি মুরগির দাম । জানা গেছে কেজিতে এইমুরগির দাম কমেছে ৪০ টাকা পর্যন্ত। সোনালি মুরগির পাশাপাশি কমেছে শসার দাম,পাশাপাশি অপরিবর্তিত রয়েছে মরিচের দাম। তবে আগের মতোই চড়া দামে বিক্রি হচ্ছে গাজর, টমেটো। আজ শুক্রবার (১৭ জুন) রাজশাহীর বিভিন্ন বাজার ঘুরে দেখা গেছে, ব্যবসায়ীরা ব্রয়লার মুরগির কেজি বিক্রি করছেন ১৫৫ থেকে ১৬০ টাকা। অর্থাৎ সপ্তাহের ব্যবধানে ব্রয়লার মুরগির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে। তবে সোনালি মুরগির কেজি বিক্রি হচ্ছে ২৫০ থেকে ২৮০ টাকা, যা গত সপ্তাহে ছিল ২৯০ থেকে ৩১০ টাকা। তবে শুপারশপ গুলোতে ব্রয়লার পরিষোধন করে বিক্রি হচ্ছে ২৯০ টাকা, তবে গরুর মাংস বিক্রি হচ্ছে ৬৩৫ টাকা কেজি দরে।

এদিকে সবজির বাজার ঘুরে দেখা গেছে, ব্যবসায়ীরা গত সপ্তাহের মতো সব থেকে বেশি দামে বিক্রি করছেন গাজর। এই গাজর প্রতি কেজি বিক্রি হচ্ছে ১৭০ থেকে ১৮০ টাকা। সপ্তাহের ব্যবধানে এই সবজির দামে আসেনি কোনো পরিবর্তন । তবে গত সপ্তাহে ৮০ টাকা কেজি বিক্রি হওয়া শসার দাম কমে বিক্রি হচ্ছে এখন ৪০ টাকা কেজি। আজ শুক্রবার পাকা টমেটোর কেজি বিক্রি হচ্ছে ৭০ থেকে ৮০ টাকা। সপ্তাহের ব্যবধানে এ সবজিটির দামে্ও আসেনি তেমন পরিবর্তন । তবে কিছুটা কমেছে বরবটি ও বেগুনের দাম। বরবটির কেজি বিক্রি হচ্ছে ৫০ থেকে ৬০ টাকা। বেগুনের কেজি বিক্রি হচ্ছে ৪০ থেকে ৫০ টাকা। তবে করলার দাম কমে ৪০ থেকে ৫০ টাকায় এসেছে, যা গত সপ্তাহে ছিল ৫০ থেকে ৬০ টাকা। এছাড়া কাঁচা পেঁপের কেজি বিক্রি হচ্ছে ৩৫ থেকে ৪০ টাকা, পটল ১৫ টাকা, ঢেঁড়স, ঝিঙে, চিচিঙ্গার কেজি বিক্রি হচ্ছে ২৫থেকে ৩৫ টাকার মধ্যে। কাঁচা কলার হালি বিক্রি হচ্ছে ৩০ থেকে ৪০ টাকা। কচুর লতি বিক্রি হচ্ছে ৫০ থেকে ৬০ টাকা। সপ্তাহের ব্যবধানে এ সবজিগুলোর দাম অপরিবর্তিত রয়েছে। বাজারে নতুন আসা বাঁধাকপির পিস বিক্রি হচ্ছে ২৫ থেকে ৩০ টাকা।

সবজির দামের বিষয়ে নগরীর আমানা ‍সুপারশপের বিক্রয় কর্মী জানান, এই সময় সাধারণত সবজির দাম বেশি থাকে। কারণ এখন সবজির সরবরাহ কম। আমাদের ধারণা আরও কয়েক মাস সবজির দাম বাড়তি থাকবে। শীতের সবজি আসলে আবার দাম কমে যাবে। এদিকে ব্যবসায়ীরা আমদানি করা রসুনের কেজি বিক্রি করছেন ১১০ টাকা। দেশি রসুনের কেজি বিক্রি হচ্ছে ৭০ থেকে ১০০ টাকা। আলুর কেজি বিক্রি হচ্ছে ৩০ টাকা। আর পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৩৫ থেকে ৪০ টাকা। সপ্তাহের ব্যবধানে এগুলোর দামে পরিবর্তন আসেনি। অপরদিকে মাছ বাজার ঘুরে দেখা গেছে, রুই মাছের কেজি বিক্রি হচ্ছে ৩০০ থেকে ৪৫০ টাকা। তেলাপিয়া, পাঙাস মাছের কেজি বিক্রি হচ্ছে ১৬০ থেকে ১৮০ টাকা। শিং মাছের কেজি বিক্রি হচ্ছে ৩০০ থেকে ৪৬০ টাকা। পাবদা মাছের কেজি বিক্রি হচ্ছে ৪০০থেকে ৪৫০ টাকা । ব্যবসায়ীরা বলছেন সপ্তাহের ব্যবধানে এসব মাছের দামে আসেনি কোন পরিবর্তন।

Related Articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Latest Articles