সর্বশেষ

27 C
Rajshahi
মঙ্গলবার, ফেব্রুয়ারি ২৭, ২০২৪

রাজশাহী-১ আসনে ফুরফুরে মেজাজে আ”লীগ নেতাকর্মীরা

টপনিউজ ডেস্ক:আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে ৭ জানুয়ারি আর এই নির্বাচনে বিএনপি অংশগ্রহন না করায় রাজশাহী-১ আসনের তানোর ও গোদাগাড়ী উপজেলা আওয়ামী লীগ সহ অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা ফুরফুরে মেজাজে রয়েছে তা দেখা মিলছে নির্বাচনি মাঠে।

রাজশাহী-১ আসনের আ”লীগ মনোনীত প্রার্থী সাবেক শিল্প প্রতিমন্ত্রী ও বর্তমান এমপি ওমর ফারুক চৌধুরীর সাথে নির্বাচনি মাঠে এবার লড়বেন জাতীয় পার্টি,জাকের পার্টি, (বিএনএম) তৃনমূল বিএনপি ও স্বতন্ত্র প্রার্থীসহ প্রায় হাফ ডজন প্রার্থীর ও বেশি।

তবে মাঠে বিএনপির কোন প্রার্থী না থাকায় এই আসনের আ”লীগ নেতাকর্মীরা নির্বাচনি প্রচারনায় চাপ নিতে নারাজ বরং নির্বাচন ঘিরে আনন্দ উৎসব বিরাজের মধ্য দিয়ে ভোট কেন্দ্রে ঘিয়ে সাধারণ মানুষ ভোট দিবেন কারন হিসাবে নেতাকর্মী রা বলেন,ওমর ফারুক চৌধুরী গত নবম, দশম ও একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে একটানা পরপর তিনবার নির্বাচিত হওয়ায় আসনটিতে মজবুত ভীত গড়েছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। এই আসনের দুটি উপজেলা ৪টি পৌরসভা ও ১৬ টি ইউনিয়নের মধ্যে সিংহভাগ ক্ষমতাসীনদের দখলে থাকায় দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনেও বিজয়ের দারপ্রান্তে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী ওমর ফারুক চৌধুরী।

আগামি১৮ ডিসেম্বরের পূর্বে নির্বাচনী এলাকায় প্রচার প্রচারণা ও গন সংযোগে নির্বাচন কমিশনের নিষেধাজ্ঞা থাকায় প্রার্থীদের প্রচার-প্রচারনা ও গণসংযোগে না থাকলেও উৎসব শুরু হয়েছে দলীয় সমর্থক ও সাধারণ ভোটারদের মাঝে।

রাজশাহী-১ আসনের বিভিন্ন এলাকায় ঘুরে সুশীল সমাজ ও জনসাধারণের সাথে কথা বলে যা পাওয়া গেছে,আ”লীগ তথা শেখ হাসিনা সরকার শান্তি শৃঙ্খলার সঙ্গে দেশ পরিচালনা করে আসছে। এই সরকারের আমলে দেশে নজিরবিহীন উন্নয়ন হয়েছে। বর্তমান সরকারের আমলে নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যের দাম বাড়লেও আয় বেড়েছে তার চেয়ে দ্বিগুন। দেশের এই উন্নয়নের চাকা সচল রাখতে এই অঞ্চলের সাধারণ ভোটারগণ ব্যক্তি নয় নৌকা প্রতীকের বিকল্প কিছু ভাবছেন না।

এই আসনের বাধাইড় ইউপির জুমার পাড়া গ্রামের বিধবা রমেচা বেওয়া (৫৫) বলেন, হতদরিদ্র পরিবারে জন্ম নিয়েছি, স্বামী মারা যাওয়ার পর দুই সন্তান নিয়ে মানুষের দ্বারে দ্বারে দুমুঠো ভাতের জন্য ঘুরেছি, বাড়ীঘর না থাকায় অন্যের বাড়িতে ঝি-এর কাজ করতাম। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাকে জমিসহ একটি পাকা বাড়ী করে দিয়েছেন। সেই সঙ্গে যুব উন্নয়ন থেকে স্বল্পসুদে ঋণ দিয়েছে। এখন আর আমাকে অন্যের বাড়ীতে ঝি-এর কাজ করতে হয় না। ঋনের টাকা দিয়ে বাড়ীতে ছাগল ও হাঁস-মুরগী পালন করছি। আমি নিজেই স্বচ্ছল।  আওয়ামী লীগ সরকার গরীব দঃখী অসহায় পরিবারকে সব সময় সহযোগীতা করে চলেছে। নৌকা প্রতীকের সরকার আবারো দরকার, তাই এবার এই এলাকার আমরা ভোটারেরা নৌকা প্রতীককেই ভোট দিবো।

সবমিলিয়ে আশা করা যাচ্ছে রাজশাহী-১ আসনে উন্নয়নের স্বার্থে জনগণ আবারো নৌকা তথা ওমর ফারুক চৌধুরী ভোট দিবেন।

সম্পাদনায়: আয়েশা ইসলাম

Related Articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Latest Articles