সর্বশেষ

38.4 C
Rajshahi
সোমবার, মে ২০, ২০২৪

শ্রীনগরে ড্রেজারের পানির তোড়ে রাস্তা ভাঙ্গার অভিযোগ

শ্রীনগর (মুন্সীগঞ্জ) প্রতিনিধি: শ্রীনগর উপজেলার ষোলঘর ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের উমপাড়ায় ড্রেজার ব্যবসায়ীর ভরাট বাণিজ্যের ফলে গ্রামীন রাস্তা ভাঙ্গা হয়েছে। ওই এলাকার মামুনের ধানের চাতাল থেকে হাওলাদার পাড়া প্রায় ৩ কিলোমিটার কাঁচা রাস্তার গদার পাড়া নামক স্থানে প্রায় আড়াইশত ফুট রাস্তা ড্রেজারের পানির তোড়ে ভেঙ্গে গেছে। ঢাকার ব্যবসায়ী নুরুল ইসলাম হাজীর একটি জমি ভরাট কাজের জন্য ড্রেজার ব্যবসায়ী মো. মফিজ ঠিকা নেয়। জায়গাটি ভরাট কাজে রাস্তার ওপর দিয়ে ড্রেজার পাইপের সংযোগের ফলে রাস্তার মাটি ধ্বসে পাশের ডোবার গিয়ে পড়ে। এতে গুরুত্বপূর্ণ রাস্তায় এলাকাবাসীর যাতায়াতে দুর্ভোগ বাড়ে।


সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, ঢাকা-মাওয়া এক্সপ্রেসওয়ের সংযোগের কাঁচা রাস্তাটির হাওলাদার পাড়ার সামনে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পরে গদার পাড়ায় একটি জমি ভরাট কাজ চলছে। এ কাজে অবৈধভাবে রাস্তার ওপর দিয়ে ড্রেজার পাইপের সংযোগ দেওয়া ফলে রাস্তায় মোটরসাইকেল ও অটোরিক্সাসহ অন্যান্য যান চলাচলে ব্যাহত হচ্ছে। অন্যদিকে ড্রেজারের পানির তোড়ে আড়াইশত ফুট রাস্তার পুরোটাই ভেঙ্গে পাশের ডোবায় চলে গেছে। এতে বিদ্যালয়ের কোমলমতি শিক্ষার্থীসহ পথচারীরা চলাফেরায় দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন।


ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি তাইজুল ইসলাম লিটন, সাধারণ সম্পাদক পাভেল রহমান বাবু, সাবেক সাধারণ সম্পাদক মো. শাহিন ও শাহারিয়ার হাসান ওয়াহিদসহ অনেকেই বলেন, জমি ভরাট কাজে সংযোগকৃত ড্রেজারের পানির চাপে সরকারি কাঁচা রাস্তার এ অংশটা ভেঙ্গে পড়েছে। এলাকার ২৪শ’ পরিবারের প্রায় ৫ হাজার মানুষের চলা ফেরায় দুর্ভোগের সৃষ্টি হচ্ছে। রাস্তার ওপর দিয়ে ড্রেজারের পাইপ সংযোগ দেওয়ায় কোন যান চলাচল সম্ভব হচ্ছেনা। এতে করে কোমলমতি শিক্ষার্থীদের পায়ে হেঁটে দীর্ঘ পথ পাড়ি দিয়ে বিদ্যালয়ে আসা যাওয়া করতে হচ্ছে। ড্রেজার ব্যবসায়ী মফিজ ও লিটনের এমন কর্মকান্ডে ক্ষোভ প্রকাশ করছেন এলাকাবাসী।


স্থানীয় ইউপি সদস্য আরিফুল ইসলাম লিপটনের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ঘটনাস্থলে গিয়ে মফিজকে বলেছি রাস্তার ভাঙ্গা স্থানে বালু দিতে আর স্থানীয় জনগণকে বলেছি বেড়ার খরচ দিতে। অবৈধ ড্রেজার বাণিজ্যের ফলে সরকারি রাস্তার ক্ষতি হলো জনগণ কেন বেড়ার খরচ দিবে এমন প্রশ্নে জবাবে তিনি এলোমেলো কথা বলেন। জমির মালিককে তিনি চিনেন না বলে এড়িয়ে যান।


ড্রেজার ব্যবসায়ী মো. মফিজের কাছে এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি দম্ভ করে বলেন, আমরা জনগণকে বলেছিলাম রাস্তায় বেড়া দিতে। তারা বেড়া দেয়নি এ কারণে ড্রেজারের পানির চাপে রাস্তা ভেঙ্গে গেছে। এটা আমার বিষয় না।


ভরাটকৃত জমির মালিক নুর ইসলাম হাজীর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি ঢাকায় থাকি। ড্রেজার ব্যবসায় মফিজকে মাটি ভরাট কাজে ঠিকা দিয়েছি। রাস্তা ভাঙ্গার বিষয়ে মফিজ আমাকে কিছু জানায়নি।
এ ব্যাপারে ষোলঘর ইউনিয়ন ভূমি অফিসের তহশিলদার মো. শাহিন জানান, বিষয়টি আমার জানাছিল না। এখনই খোঁজ নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিচ্ছি।

Related Articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Latest Articles