সাটারিং মিস্ত্রীর আড়ালে মাদক ব্যবসায়ী!

অতিষ্ঠ এলাকাবাসী, বাধা দিলেই মামলার হুমকি

0
115
সাটারিং মিস্ত্রীর আড়ালে মাদক ব্যবসা!
ছবিঃ প্রতিনিধি

তানোর (রাজশাহী) প্রতিনিধি : রাজশাহী গোদাগাড়ী পৌর এলাকায় সাটারিং মিস্ত্রীর আড়ালে নাসির ও তার মা নুর-নাহারের মাদক ব্যবসা করছে। এতে অতিষ্ঠ এলাকাবাসী, বাধা দিলেই মামলার হুমকি।
গোদাগাড়ী পৌরসভার ২নং ওয়ার্ড মহিষাল বাড়ি মাদ্রাসার পিছনে নাসিরের বাসাতে প্রতিদিন বসে এই মাদকের হাট। নাসির একজন সাটারিং মিস্ত্রী হিসাবে নিজেকে পরিচয় দেয়। কিন্তু তার আড়ালে খুচরা ও পাইকারিভাবে (ডিলার) হিরোইন বিক্রি করে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় জনসাধারণ।

মহিষাল বাড়ীর স্থানীয় নাগরিক জাহাঙ্গীর, করিম, রুবেল ও সাজ্জাদ নামে ব্যক্তিরা নাসিরের বিষয়ে জানান যে, ওরা খুব শক্তিশালি। নাসিরের বাবা সহিদুল একজন হিরোইন সেবন কারী ও নাসিরের মা নুর-নাহার বেগম প্রতিদিন সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত ইয়াবা ও হিরোইন পাইকারি (ডিলার) ও খুচরা ভাবে নিজ বাসাতেই অপেন বিক্রি করেন। অনেক সময় এলাকাবাসী বাধা দেয়, কিন্তু কিছুই মনে করেন না তারা। বরং উল্টো এলাকাবাসীকেই হুমকি দেয় তারা। অকপটে বলে আইন আমাদের হাতে, বেশি বাড়াবাড়ি করলে মাদকের পলাতক মামলা করে দিবে।

নাসিরের প্রতিবেশীদের কথা বলার চেষ্টা করলে তারা এড়িয়ে যায়। তবে সাংবাদিকদের উপস্থিতি টের পেয়ে মহিষাল বাড়ীর স্থানীয় সুশীল সমাজ জানান, নাসির ও তার মা নুর-নাহারের জ্বালায় তারা অতিষ্ঠ। তাই প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন তারা। ওই এলাকা থেকে মাদক মুক্ত কারর অনুরোধ জানিয়েছেন গোদাগাড়ী মডেল থানা পুলিশের কাছে।

উল্লেখ্য, নাসিরের নামে ৩ টি মাদক মামলা ও তার পিতা সহিদুল ইসলামের নামে ৪ টি মাদকের পালাতক এবং নাসিরের মাতা নুর নাহার বেগমের নামে গোদাগাড়ী মডেল থানা সহ বিভিন্ন থানায় ৬টা মাদক মামলা আছে। এ বিষয়ে নাসিরের মোবাইলে ফোন দেওয়া হলে তিনি ফোন রিসিভ না করায় তার কোন বক্তব্য পাওয়া যাইনি।

এ প্রসঙ্গে গোদাগাড়ী মডেল থানা অফিসার ইনচার্জ কামরুল ইসলাম বলেন, এ বিষয়ে তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। মাদকের সাথে সংশ্লিষ্ট থাকলে সে যত বড় শক্তিশালী হোক তাকে আইনের আওতায় আনা হবে। 

সম্পাদনায়ঃ হাবিবা সুলতানা

আপনার মন্তব্য