সর্বশেষ

31.1 C
Rajshahi
বুধবার, জুন ২৬, ২০২৪

শ্রীনগরে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ঢুকে প্রতিপক্ষের ওপর ইউপি সদস্যর হামলা, আহত ৩

শ্রীনগর (মুন্সীগঞ্জ) প্রতিনিধি: মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগরে পূর্ব শক্রুতার জের ধরে প্রতিপক্ষের ওপরে দুই দফা সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় ৩ জন আহত হয়েছে। উপজেলার পাটাভোগ ইউনিয়ন পরিষদের ইউপি সদস্য সেলিম হোসেন (৫৫) ও তার পুত্র বিশাল শেখ (২৪) ভিন্ন ভিন্নভাবে এই হামলায় নেতৃত্ব দেন। অভিযোগ উঠেছে শ্রীনগর ছনবাড়িতে প্রথম দফায় বিশাল শেখ ও তার সহযোগীদের হামলার শিকার আহত মো. রানা ও তার মামা মো. ফয়সাল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য আসলে ইউপি সদস্য সেলিমের নেতৃত্বে চিকিৎসারত অবস্থায় হাসপাতালের জরুরী বিভাগের ভিতরে দেশীয় অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে বিশালসহ তার লোকজন পুনরায় রানাদের ওপর হামলা চালায়। এ পরিস্থিতিতে হাসপাতালের ডাক্তার, নার্সসহ অন্যান্য রোগীদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের ফোন পেয়ে শ্রীনগর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। সোমবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এই হামলার ঘটনা ঘটে। আহতরা হলেন পুর্ব বেজগাঁও গ্রামের মৃত হুমায়ুনের পুত্র রানা (২৮), হারুন দেওয়ানের পুত্র মানিক দেওয়ান (২২) ও মান্নান দেওয়ানের পুত্র ফয়সাল (২২)।


এ ঘটনায় রানার নানা মো. মান্নান দেওয়ান বাদী হয়ে ইউপি সদস্য সেলিম শেখ, বিশাল শেখ (২৪), শিপলু (২২), শাহজাহান (৬০) সিফাত (২২), সমিক শেখ (২০), সাকিব শেখ (১৮) অজ্ঞাত কয়েকজনের বিরুদ্ধে শ্রীনগর থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। তিনি জানান, মাদকের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করলে বিশাল ও তার সহযোগীরা রানার ওপর ক্ষিপ্ত হয়। এর জের ধরে সোমবার সন্ধ্যায় ছনবাড়ি চৌরাস্তায় খালেক মিয়ার দোকানের সামনে রানার ওপর প্রথম হামলা চালায়। এ সময় আমার পুত্র ফয়সাল তাকে বাচাতে গেলে তাকেও মেরে আহত করে। পরে চিকিৎসার জন্য তাদেরকে হাসপাতালে নেওয়া হলে হাসপাতালের ভিতরে সেলিম মেম্বারের নেতৃত্বে চাকু ও লাঠিসোঠা নিয়ে হামলা চালায় সন্ত্রাসীরা। এতে রানা, ফয়সাল ও মানিক রক্তাত্ব জখম হয়। এ ঘটনায় অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে শ্রীনগর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করি।


উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. আবু তোহা শাকিল জানান, হাসপাতাল থেকে আমাকে জানানো হলে পুলিশকে খবর দেই। হাসপাতালে হামলার ঘটনাটি দুঃখজনক। আমাদের সিসি ক্যামেরার ফুটেজ পুলিশ দেওয়া হবে। আহত রোগীদের উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মিটফোর্ড হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়েছে।


এ বিষয়ে জানতে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে স্থানীয় ইউপি সদস্য মো. সেলিম হোসেন মোবাইল ফোন রিসিভ করেনি। শ্রীনগর থানার অফিসার ইনচার্জ মো. আমিনুল ইসলাম জানান, অভিযোগ দায়ের হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Related Articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Latest Articles