সর্বশেষ

30.8 C
Rajshahi
বুধবার, জুলাই ১৭, ২০২৪

পাকিস্তানের প্রধান মন্ত্রী ইমরান খান অনাস্থার মুখে

টপ নিউজ ডেস্কঃ রোববার (১৩ মার্চ) দ্য নিউজের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাব এনেছে বিরোধী দলগুলো।


 ইমরান খানের দল থেকে সংসদ সদস্যদের একাংশ তার বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছে বলে দাবি করেছেন বিরোধী দল পাকিস্তান মুসলিম লিগ-এন এর নেতা রানা ইহসান আফজাল খান।

জাহাঙ্গীর তারিনও রয়েছেন  অনাস্থা ভোটের পক্ষে । তিনি একসময় ইমরান খানের  দলের প্রধান রাজনৈতিক সহযোগী ছিলেন। তিনি এর আগেও  পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী উসমান বাজদারের বিরুদ্ধে অনাস্থার পদক্ষেপ নিয়েছিলেন।

দ্য নিউজে বলা হয়েছে, যদি পিএমএল-কিউ সমর্থন দেয় তাহলে ইমরান খানের বিরোধী দলগুলো পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে চৌধুরী পারভেজ ইলাহিকে  দেখতে চান  । এছাড়া মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে পিটিআইয়ের অন্য এক মন্ত্রী আব্দুল আলিমের নামও শোনা যাচ্ছে। তবে কেউ তারিন গ্রুপ এর আলিমকে সমর্থন করছে না।

ইমরান খান সরকারের বিরুদ্ধে অনাস্থার বিষয় সমর্থন করার খবর প্রথমে নিশ্চিত করেছিলেন রাজা রিয়াজ নামের এক তারিন গ্রুপের সদস্য। তিনি পরে জানান, অনাস্থা পক্ষে ভোট দেওয়া হবে কি না সে ব্যাপারে এখনও  চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি। জাহাঙ্গীর তারিন দেশে ফিরলেই এ বিষয়ে স্পষ্ট জানা যাবে।  পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী কে হবেন সে বিষয়ে এখনও চূড়ান্ত চুক্তি হয়নি।

ইমরান খানের এখনও ক্ষমতার বৈধ মেয়াদ আছে প্রায় ১৭ মাস। ইমরান খান ক্ষমতায় আসার পর তারিনের সঙ্গে তার ঘনিষ্ঠতা কমতে থাকে। ইমরান খান ক্ষমতায় আসার পর প্রায় তিন বছরের মাথায় দলের ভেতর নিজ অনুসারীদের নিয়ে আলাদা একটা দল গঠন করেন। এখন সেই দলটির চাপেই  পড়েছেন ইমরান খান ।


এদিকে ইমরান খানকে সরানোর ব্যাপারে বিরোধীদলগুলো আত্মবিশ্বাসী বলে দাবি করেছে।  বিরোধীদলগুলো আরও দাবি করেছে পিটিআইয়ের ২৮ আইনপ্রণেতা এবং সরকারি জোটের কয়েকজন নেতারা তাদের সমর্থন আছে। মোট ২০২ জন সংসদ সদস্যের সমর্থন আছে বলে দাবি করেছে তারা।

পাকিস্তানের সংবিধান অনুযায়ী, অনাস্থা প্রস্তাব জমা দেওয়ার পর আর প্রধানমন্ত্রী সংসদ ভেঙে দিতে পারবে না।

বিরোধীদলের এক নেতা সংবাদমাধ্যমে বলেছেন, ইমরান খান যদি লজ্জার হাত থেকে  নিজেকে  বাঁচাতে চান, তবে তার উচিত তিনি যেনো প্রধানমন্ত্রী পদত্যাগ করেন।  পাকিস্তানের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী শেখ রশিদ আহমেদ বিশ্বাস করেন, ইমরান খান অনাস্থা ভোটে টিকে যাবেন। এবং তিনি আরও মনে করেন উল্টো বিরোধীদের অনাস্থা ভোট ব্যর্থ হবে।

গত মঙ্গলবার (৮ মার্চ) পিটিআই নেতা প্রধানমন্ত্রী   ইমরান খানের বিরুদ্ধে পার্লামেন্টের জাতীয় পরিষদে অনাস্থা প্রস্তাব জমা দিয়েছে বিরোধী দলগুলো। বিরোধি দলগুলো জানিয়েছেন  এ প্রস্তাব নিয়ে আলোচনা ও ভোটের জন্য অধিবেশন ডাকতে স্পিকারের প্রতি লিখিত আবেদন দিয়েছেন । পাকিস্তানের সংবিধান অনুযায়ী, ৩৪২ সদস্যবিশিষ্ট নিম্নকক্ষে উত্থাপিত অনাস্থা প্রস্তাব পাসের জন্য প্রয়োজন ১৭২ ভোট।

পাকিস্তানের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী শেখ রশিদ আহমেদ জানায়, আগামী ২২ মার্চ ইসলামাবাদে ইসলামি সহযোগিতা সংস্থার  বৈঠকের পর অনাস্থা প্রস্তাবে ভোটাভুটি হতে পারে।

পাকিস্তানে ২০২১ সালের মার্চে সিনেট নির্বাচন নিয়ে হতাশা তৈরি হলে সংসদে স্বেচ্ছা অনাস্থা ভোটের আয়োজন করা হয়েছিল। ওই ভোটে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান মাত্র ছয় ভোট বেশি পেয়ে টিকে যান । তিনি তখন ১৭৮ ভোট পেয়েছিলেন।

সম্পাদনায়ঃ মোঃ আব্দুল ওয়াহেদ

Related Articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Latest Articles